আজমিরীগঞ্জে শিশু হত্যার হুমকির ঘটনা তদন্তে সত্যতা নিশ্চিত পেয়েছে পুলিশ
তারিখ: ১৯-জুন-২০১৭
আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধি ॥

আজমিরীগঞ্জে শিশু হত্যার হুমকির ঘটনা তদন্তে সত্যতা নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। পরে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে উপজেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে প্রসিকিউশন দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, গত বুধবার বিকেল সাড়ে ৪ টায় আজমিরীগঞ্জ পৌর এলাকার বাজার সংলগ্ন সরাপনগর গ্রামে শিশু হত্যার হুমকির বিষয়টি  আজমিরীগঞ্জ থানার এ.এস.আই মোঃ শাহীন মিয়া সরজমিনে গিয়ে তদন্ত করেছেন।  দায়ের করা  জিডি'র ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে  তিনি নিশ্চিত হন। এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে প্রসিকিউশন দায়ের করে পুলিশ । উল্লেখ্য,  গত রবিবার বিকাল ৫ টায় আজমিরীগঞ্জ পৌর এলাকার বাজার সংলগ্ন সরাপনগর গ্রামের বাসিন্দা বাদল কৃষ্ণ ব্যানার্জী'র ৫ বছরের শিশুকে নিয়ে তার দিদিমা বাড়ির সামনের উঠানে পায়চারী করছিলেন। এ সময় অসাবধানতা বশতঃ ওই  শিশুর হাত উঠানের  সংলগ্ন সিঁড়িতে বসা পাশ্ববর্তী  বাড়ির মঞ্জু কান্তি রায়ের স্ত্রী'র গায়ে লেগে যায়। বিষয়টি উভয়পক্ষের মহিলাদের মধ্যে বাক বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে মঞ্জু রায়ের স্ত্রী তাকে মোবাইল করে বাজার থেকে বাড়িতে আনে। মঞ্জু বাড়িতে এসেই কোন কিছু না বুঝেই পুরুষ শূণ্য বাড়িতে ওই শিশুর মাকে একা পেয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ও মারপিট করতে উদ্যত হয়। এক পর্যায়ে মঞ্জু ওই  শিশুটিকে প্রাণে মেরে লাশ গুম করাসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মারপিট, মিথ্যা মামলায় হয়রানি করে এলাকা ছাড়া করার হুমকি দেয় বলে জানান বাদল কৃষ্ণ ব্যানার্জি। বিষয়টি তাৎক্ষনিক আজমিরীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে অবহিত করা হয়। ঘটনার পরেরদিন সোমবার শিশুর জীবন ও পরিবারের সদস্যদের  জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে শিশুর পিতা বাদল কৃষ্ণ ব্যানার্জী বাদি হয়ে মঞ্জু কান্তি রায় ও তার স্ত্রী'কে আসামি করে আজমিরীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী দায়ের করেন। এ প্রেক্ষিতে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করেছে।

প্রথম পাতা