হবিগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে আনসার সদস্যকে লাঞ্ছিত ॥ প্রতিবাদে কর্মবিরতি
তারিখ: ১২-সেপ্টেম্বর-২০১৮
স্টাফ রিপোর্টার ॥

নবাগত সহকারী পরিচালক কর্তৃক কর্মরত এক আনসার সদস্যকে লাঞ্ছিতের ঘটনায় হবিগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে সৃষ্টি হয়েছে অচলাবস্থা। গত সোমবার দুপুরে সৃষ্ট এ ঘটনার পর থেকে দায়িত্বরত সকল আনসার সদস্য তাদের পোশাক খুলে কর্মবিরতি পালন করছে। ফলে এখন নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রয়েছে হবিগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস। জানা যায়, ওইদিন দুপুর প্রায় পৌনে ১টার দিকে আনসার সদস্য রুবেল ডিউটি করছিলেন অফিসের পাসপোর্ট সংক্রান্ত কাগজপত্র জমা-বিতরন শাখা ও দর্শনাথী বিশ্রাম কক্ষের মূল গেইটে। এ সময় দায়িত্বে অবহেলার কারনে রুবেলকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন মধুসূদন সরকার। এ ব্যাপারে মুধুসুদন সরকারের জানান, ‘রুবেল দায়িত্ব পালন না করে নিজস্ব ফায়দা নিতে অন্যত্র ঘুরাফেরা করছিল। তিনি তা দেখতে পেয়ে রুবেলের নিকট তার দায়িত্ব পালনে এমন উদাসীনতার কারন জানতে চান। কিন্তু রুবেল তখন তার সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়লে তিনি তাকে শাসন করেন’।

অপর দিকে রুবেলের বক্তব্য, ‘সহকারী পরিচালক তাকে অকারনেই শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। যে কারনে তারা প্রতিবাদ স্বরুপ কর্মবিরতি পালন করছেন এবং জেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তাদের বিষয়টি অবহিত করেছেন। খবর পেয়ে ওইদিন বেলা আড়াইটার দিকে আনসার কর্মকর্তা মুজিবুর রহমানের নেতৃৃত্বে দুই সদস্যের একটি টীম বিষয়টি নিয়ে অভিযুক্ত পরিচালক মধুসুদনের সাথে কথা বলতে  তার অফিসে যান।

সূত্র জানায়, ওই টিম সহকারী পরিচালকের নিকট জানতে চান সরকারী সার্ভিস রুল ভঙ্গ করে তিনি কেন অপর একটি সংস্থার কর্মচারীর গায়ে হাত তুললেন। কিন্তু সহকারী পরিচালক তার কোন সদোত্তর না দিয়ে বিষয়টি সমাধানের অনুরোধ জানান। আনসার কর্মকর্তাগন পরিচালকের বক্তব্যে সন্তোষ্ট না হয়ে আক্রান্ত রুবেলকে নিয়ে অফিস কক্ষ থেকে বেরিয়ে যান।

সূত্র মতে, সহকারী পরিচালকের বিরুদ্ধে রুবেলকে বাদী করে একটি মামলা দায়ের করতে পারে জেলা আনসার ও ভিডিপি কার্যালয়। এদিকে, সহকারী পরিচালক মধুসুদনও তার মত করে এই ঘটনা নিজ দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ জেলা প্রশাসনকে অবহিত করেছেন।





প্রথম পাতা