বানিয়াচঙ্গে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রেমিকাকে ধর্ষণ করেছে প্রেমিক
তারিখ: ১৩-মার্চ-২০১৮
জাহেদ আলী মামুন ॥

বানিয়াচঙ্গে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অসুস্থ অবস্থায় ওই প্রেমিকাকে সোমবার হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধর্ষিত প্রেমিকা উপজেলার পাহারপুর গ্রামের জাফর আলীর কন্যা। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাহারপুর গ্রামের জাফর আলীর কন্যার সাথে প্রায় দুই বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছে একই গ্রামের আব্দুল আলীর পুত্র মদরিস মিয়া (২৫) এর। দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক থাকার সুবাদে তারা একে অপরকে কাছে পেতে মরিয়া হয়ে উঠে। সম্প্রতি মদরিস মিয়া তার প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ঘনিষ্ঠতা অর্জন করে। এক পর্যায়ে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে রোববার দিবাগত মধ্য রাতে প্রেমিকাকে বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর ওই প্রেমিকা তাকে বিয়ের জন্য চাপ প্রয়োগ করলে মদরিস কৌশলে বাড়িতে দিয়ে পালিয়ে যায়। সোমবার সকালে এ ঘটনাটি এলাকায় লোকমুখে প্রচার হলে সর্বত্র আলোচনা ও সমালোচনার সৃষ্টি হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের চিকিৎসক রাজিব চৌধুরী জানান, ধর্ষণের অভিযোগ এনে যুবতি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। পরীক্ষা নিরীক্ষার করে বুঝা যাবে আসলে সে ধর্ষণে শিকার হয়েছে কি না। বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক জানান, প্রেমিকের হাতে প্রেমিকা ধর্ষণ হয়েছে এরকম কোন ঘটনার খবর এখনও পাইনি। যদি হয়ে থাকে তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।





প্রথম পাতা