জেলা প্রশাসকের পরিদর্শন ॥ হুমকিরমুখে শহররক্ষা বাঁধ ॥ খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ২৩০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত ॥ আতঙ্কিত লোকজন রাত জেগে পাহাড়া দিচ্ছে
তারিখ: ১৪-জুন-২০১৮
জাকারিয়া চৌধুরী ॥

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে প্রবল বর্ষণের কারণে হবিগঞ্জ শহরের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়ায় খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ২৩০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে হুমকিতে রয়েছে শহর রক্ষা বাঁধ। আর এতে করে আতঙ্ক বিরাজ করছে স্থানীয় নদী পাড়ের সাধারণ মানুষদের মাঝে। গত মঙ্গলবার সকাল থেকে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি মাঝে মধ্যে ভারি বর্ষণ ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢল অব্যাহত থাকার কারণে খোয়াই নদীর পানি বাড়তে শুরু করে। বুধবার দিবাগত রাত ১ টা পর্যন্ত নদীর পানি বিপদসীমার ২৩০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তাওহিদুল ইসলাম জানান, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের কারণে খোয়াই নদীর পানি বাড়তে শুরু করে। যা নদীর বিভিন্ন অংশে বিপদসীমার ২৩০ সেন্টিমিটার অতিক্রম করে। তিনি আরও জানান, জরুরি দুর্যোগ মোকাবেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ড অতিরিক্ত বালির বস্তা মজুদ রেখেছে। যাতে করে বাঁধের কোনও স্থানে লিকেজ দেখা দিলে তাৎক্ষণিকভাবে মেরামতের ব্যবস্থা করা যায়। এছাড়াও আবহাওয়া স্বাভাবিক হয়ে আসলে ধীরে ধীরে নদীর পানি কমে আসবে বলেও তিনি জানান। এদিকে, গতকাল বুধবার বিকেলে শহরের কামড়াপুর পয়েন্টসহ বেশ কয়েকটি ঝুকিপুর্ণ পয়েন্ট পরিদর্শন করেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবির মুরাদ। এসময় তিনি পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ স্থানীয় জনসাধারণকে সর্বদা সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশ দেন। পরিদর্শনকালে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অপরদিকে, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে কিংবা বাংলাদেশে টানা বৃষ্টি হলেই গলার কাটা হয়ে দাড়ায় খোয়াই। পানির গর্জনে আতংকে থাকে নদীর দু পড়ের সাধারণ মানুষজন। নদী পাড়ের অনেক বাসিন্দারা রাতে নদীর পাড়ে বসে পাহাড়া দিচ্ছে। যাতে করে কোন স্থানে ভাঙ্গনের সৃষ্টির আশংকা হলে তাৎক্ষনিক মেরামত করার যায়।