জাতীয় পার্টির নব নিযুক্ত মহাসচিবের সাথে শংকর পালের সাক্ষাত
তারিখ: ৬-ডিসেম্বর-২০১৮
স্টাফ রিপোর্টার ॥

জাতীয় পার্টির নব নিযুক্ত মহাসচিব প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, হবিগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও বানিয়াচঙ্গ- আজমিরীগঞ্জ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী শংকর পাল। তিনি গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় পার্টির বনানীস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে মহাসচিবের সাথে সাক্ষাত করেন। সাক্ষাতকালে তিনি মহাসচিবকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় উপস্থিত মহা-সচিব জাপা নেতা শংকর পালকে বলেন-আগামী দুয়েক দিনের মধ্যে মহাজোটের চুড়ান্ত প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। জাপা নেতা শংকর পাল ২০০১ সালে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হয়ে বানিয়াচঙ্গ-আজমিরীগঞ্জ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ২০০৮সালে তিনি মনোনয়ন না পাওয়ার নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেননি। পরবর্তীতে ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে ভোট যুদ্ধে অংশ গ্রহন করেন। এই নির্বাচনে তার নিশ্চিত বিজয় থাকা স্বত্যেও কেন্দ্র দখল ও কারচুপি করে তাকে পরাজিত করা হয়। কারচুপির কারণে নির্বাচনের দিন দুপুরে তিনি সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জন করেন। পরবর্তীতে এক তরফা প্রকাশিত ফলাফলের তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা মূলক ভোট পান। কারচুপি নির্বাচনের পরও তিনি হাল চারেরনি আবারও বানিয়াচঙ্গ-আজমিরীগঞ্জের নির্বাচনীয় দলীয় ও সামাজিক কর্মকান্ড চালিয়ে যান। পুরো নির্বাচনীয় এলাকার জনগণ ও বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীদের সাথেই রয়েছে জাপা নেতা শংকর পালের গভীর সম্পর্ক। তিনি দীর্ঘদিন ধরে এলাকার উন্নয়নে ব্যক্তিগত ভাবে মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজ, কবর স্থান, মন্দির, শশ্মানঘাটসহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অনুদান দিয়ে আসছেন। বানিয়াচঙ্গ-আজমিরীগঞ্জের রাজনীতিতে এ ধরণের ব্যক্তি অনুদান আর কেউ দেননি। এবারের নির্বাচনে তাকে হবিগঞ্জ জেলা, বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতৃবৃন্দ তাকে মহাজোটের দাবি ঘোষণা করার জন্য মহাজোট নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মহাজোট নেতা সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এর কাছে দাবি জানিয়ে আসছেন। তাকে মহাজোটের প্রার্থী দিলে মহাজোটের নিশ্চিত বিজয় হবে বলে এলাকাবাসী আশাবাদী।





প্রথম পাতা